অপরাধ

আল আমিন, গোলজার ও আব্দুন নূরের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশে মানহানির অভিযোগ

রাজনৈতিক ভাবে মান হানির অপচেষ্টা

শাহারুখ আহমেদঃ সোনারগাঁও উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের সোবহান গংয়ের কাছ থেকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বাবুল হোসেন প্রথমে ৪৮ শতাংশ জমি বায়না করেন এবং পরবর্তীতে তার নামে সোবহান গং পাওয়ার নামা করে দেন।

পরবর্তীতে আবার গ্যাস্টন ব্যাটারী লিমিটেড নামের কোম্পানির কাছে গত ৫ মার্চ ২০২০ তারিখে ৩৩৩৪ ও ৩৩৩৫ দলিল মূলে দুই দফায় ৪৮ শতাংশ জমি বিক্রি করে।
এদিকে ভাইস চেয়ারম্যানের পাওয়ার নামার কথা কোম্পানি জানতে পেরে সোবহান গংয়ের পাশাপাশি ভাইস চেয়ারম্যান বাবুল হোসেন বাবুর কাছ থেকেও কোম্পানি না মুলক দলিল করে নেন। সে সময় মিমাংসার জন্য এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ হিসেবে আল আমিন, গোলজার, আব্দুন নূর সহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন। এখানে আল আমিন বা গোলজার আব্দুন নূর নিজে কোন জমি ক্রয় করেনি বা বিক্রিও করেনি।

পরবর্তীতে সোবহান গং বিক্রিত জমি ছেড়ে দিতে তালবাহানা করলে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মিমাংশা হয়।
তারপরও এই সমাধান হওয়া বিষয়টি নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতা আল আমিন, গোলজার ও আব্দুন নূরকে নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ পত্রে মিথ্যা অপপ্রচার করে বলে অভিযোগ করেন বাসাবো তিলাবো সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আল আমিন।

তাছাড়া অভিযোগকারী সোবহানের আপন ভাই ইব্রাহিম নিজেও বলেন, এই বিষয়ে সমাধান হয়ে গেছে। এখানে আল আমিন, গোলজার বা আব্দুন নুরের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই। কে বা কারা তাদের সম্মানহানি করার জন্য মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়েছে।

এ বিষয়ে আওয়ামীলীগ নেতা আল আমিন জানান, উক্ত কোম্পানিটি আমাদের এলাকায় থাকায় সোবহান গংদের সাথে ঝামেলা হলে মিমাংসার বিষয়ে শুধু আমরা জানতে পারি। এখানে আমাদের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে তার কোন ভিত্তি নেই। অভিযোগ কারী সোবহান এবং তার ভাই ইব্রাহিম সহ তাদের পরিবার সাংবাদিকদের এবং এলাকাবাসী সবার সামনে জানায় এখানে আমাদের কারও বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই। কোম্পানির সাথে যে ভুল বুঝাবুঝি ছিলো তা মিমাংসায় আল আমিন, গোলজার ও আব্দুন নূর সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিরা আমাদের উপকার করেছে। তাহলে কি জন্য বা কোন স্বার্থে সাংবাদিক ভাইদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা নিউজ করতেছে? আমি এই মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close