বিনোদন

স্ত্রীর কাছে ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন সঙ্গীতপরিচালক ইমন

০১ জানুয়ারী ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সংগীত পরিচালক শওকত আলী ইমনকে অভিযুক্ত করে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেছে পুলিশ। মামলাটি প্রমাণের জন্য চার্জশিটে ৯ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে। রোববার (৩ জানুয়ারি) এ মামলার দিন ধার্য রয়েছে।

চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়েছে, ইমন স্ত্রী রিদিতা রেজার কাছে যৌতুক হিসেবে দশ লাখ টাকা দাবি করেন এবং তা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মারপিট করে বাসা থেকে বের করে দেন তিনি। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রমনা থানার পুলিশের পরিদর্শক তাহমিনা রহমান গণমাধ্যমকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক রিদিতা রেজাকে বিয়ে করেন আসামি শওকত আলী ইমন। তিনি একজন যৌতুক লোভী ও মারমুখী লোক। বিয়ের পর থেকে স্ত্রী রিদিতা রেজার নিকট যৌতুক দাবি করে তাকে মারপিট ও মানসিক নির্যাতন করে আসছে বলে প্রাথমিক তদন্তে প্রকাশ পায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘তার ধারাবাহিকতায় গত ৩ জুলাই রাত সাড়ে ১১টার দিকে আসামি ইমন তার বাসা রমনা থানাধীন ইস্কাটন গার্ডেনের বাসায় পুনরায় বাদিনীর নিকট যৌতুক হিসেবে দশ লাখ টাকা দাবি করেন। রিদিতা রেজা যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে আসামি ইমন তার স্ত্রীকে মারপিট করে বাসা থেকে বের করে দেন।’

এদিকে, গত ২০ সেপ্টেম্বর যৌতুকের জন্য নির্যাতনের অভিযোগে শওকত আলী ইমনের স্ত্রী রিদিতা রেজা বাদী হয়ে রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এরপর গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে ইস্কাটনের বাসা থেকে শওকত আলী ইমনকে গ্রেফতার করে রমনা থানা পুলিশ। পরের দিন ২৬ সেপ্টেম্বর আদালত জামিন আবেদন খারিজ করে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

তারপর গত ২৯ সেপ্টেম্বর ফের জামিনের আবেদন করেন। ফের আদালত জামিন আবেদন খারিজ করে দেন। সর্বশেষ গত ১ অক্টোবর আসামি ইমনের জামিনের জন্য তার আইনজীবী মো. সেলিম একে মুজাহেদী আদালতে আবেদন করেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী এনায়েতু বাতেন জামিনের বিরোধীতা করেন।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. কায়সারুল ইসলামের আদালত দুই হাজার টাকা মুচলেকায় ইমনকে জামিন দেন। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সংবাদ পাঠিকা রিদিতা রেজাকে বিয়ে করেন শওকত আলী ইমন। এটি তার তৃতীয় বিয়ে ছিল।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close