• শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সিয়াম হত্যার ৮ আসামিই মেঘনার  মেঘনায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা দপ্তরের কর্মকর্তা -কর্মচারীদের কর্মবিরতি কুমিল্লার বাঙ্গরায় পুলিশের উপর হামলা করে আসামি ছিনতাই ব্রাহ্মণপাড়া ভারত সীমান্তে বাংলাদেশি যুবকের লাশ উদ্ধার কুমিল্লায় কিশোর অপরাধ ও মহাসড়কে ডাকাতি রোধে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিব : নবাগত পুলিশ সুপার  জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে ‘গুম-খুনে’র তদন্ত চায় বিএনপি এদেশের মাটিতে সবার সমান অধিকার : প্রধানমন্ত্রী মেঘনায় ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ : তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে সাংবাদিককে হুমকি  মেঘনায় গামছা গলায় পেচিয়ে আ’লীগ নেতাকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যাচেষ্টা:থানাকে ব্যবস্থা নিতে ২৪ ঘন্টা আল্টিমেটাম মুক্তিযোদ্ধাদের

নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীকে প্রাইভেট পড়ানো যাবে না

শিক্ষা আইনের খসড়া মন্ত্রিপরিষদে

রিপোর্টার : / ৩৩ বার পঠিত
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৫ জুলাই, ২০২২

১৫ জুলাই ২০২২ইং আজকের মেঘনা ডটকম,

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষক তাঁর নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীকে প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না। এমন বাধ্যবাধকতা রেখে শিক্ষা আইনের খসড়া চূড়ান্ত করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রস্তাবিত আইনের খসড়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নির্ধারিত সময়ের বাইরে শিক্ষকদের কোচিং-প্রাইভেটের সুযোগ রাখা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের করা খসড়া অনুযায়ী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট টিউশনের মাধ্যমে পাঠদানের জন্য কোচিং সেন্টার পরিচালনা করা বা কোচিং সেন্টারে শিক্ষকতা করা নিষিদ্ধ বলে গণ্য হবে না।

তবে কোচিং সেন্টারে কোনো শিক্ষক তাঁর নিজ প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থীকে পাঠদান করাতে পারবেন না। এমনকি কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষক নিজ প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষার্থীকে প্রাইভেটও পড়াতে পারবেন না। কোচিং চালাতে গেলে নিবন্ধন নিতে হবে। তবে সরকার নির্ধারিত অর্থের বিনিময়ে ও অভিভাবকদের সম্মতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শ্রেণি কার্যক্রমের বাইরের সময় অতিরিক্ত ক্লাসের ব্যবস্থা করা যাবে।

অবশ্য এ বিষয়ে ইতোমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্বাহী আদেশ রয়েছে।
২০১১ সাল থেকে শিক্ষা আইনের খসড়া নিয়ে আলোচনা চলছে। অভিযোগ আছে, নোট-গাইড বা সহায়ক বই এবং কোচিং-প্রাইভেটের মতো কিছু বিষয় রাখা না-রাখা নিয়েই আইনের খসড়াটি এত দীর্ঘ বছর ধরে ঘুরপাক খাচ্ছে। অবশেষে শিক্ষা আইনের খসড়া প্রণয়ন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠাল শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রস্তাবিত আইনের খসড়ায় নোট-গাইড বই মুদ্রণ, বাঁধাই, প্রকাশ বা বাজারজাত নিষিদ্ধ রাখা হয়েছে। কেউ এই বিধান লঙ্ঘন করলে জেল-জরিমানা ভোগ করতে হবে। ১৯৮০ সালে করা একটি আইনেও অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত নোট-গাইড নিষিদ্ধই আছে। এ জন্য এখন নোট-গাইডের পরিবর্তে অনুশীলন বই বা সহায়ক পাঠ্যবই চলছে। প্রস্তাবিত আইনেও সরকারের অনুমোদন নিয়ে সহায়ক বই বাঁধাই, প্রকাশ বা বাজারজাত করার সুযোগ রাখা হয়েছে।
তবে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা কোনো শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সহায়ক বই কেনা বা পাঠে বাধ্য করতে পারবেন না। এসব বই কিনতে বা পাঠে বাধ্য বা উৎসাহ দিলে তা অসদাচরণ হিসেবে গণ্য হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

পুরাতন সংবাদ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১